বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনীদের দেশে ফিরিয়ে এনে অবিলম্বে রায় কার্যকর করা হোক– মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রনজিৎ কুমার চৌধুরী

বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনীদের দেশে ফিরিয়ে এনে অবিলম্বে রায় কার্যকর করা হোক– মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রনজিৎ কুমার চৌধুরী


হারুন অর রশীদ উজ্জল:
বঙ্গবন্ধুর বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনীদের দেশে ফিরিয়ে এন অবিলম্বে রায় কার্যকরের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রনজিতৎ কুমার চৌধুরী । তিনি আরও বলেন দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় এসে বঙ্গবন্ধুর খুনীদের শাস্তি কার্যকর করেন তাঁর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা। তখন পালিয়ে বিদেশে অবস্থান করছিলো কুখ্যাত কয়েকজন খুনী। আজো তাদেরকে ফেরত এনে রায় কার্যকর করা যায়নি । বিদেশে পলাতক বঙ্গবন্ধু হত্যার আত্মস্বীকৃত খুনীদের দেশে ফিরিয়ে এনে ফাঁসির রায় কার্যকর করার দাবিতে সব সহলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানিয়ে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রনজিৎ কুমার চৌধুরী আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু মানেই শোষণহীন সমাজের স্বপ্নের প্রতিচ্ছবি। ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্টের কালরাতে স্বপ্নের সমাধি করে এই জাতিকে চিরতরে অভিভাবকশূন্য করে একদল নরপিশাচ, ক্ষমতা লোভী, ঠান্ডা মাথার খুনীচক্র।
বৃহশপতিবার জাতীয় শোক দিবস ও জাতির পিতার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে বান্দাইখাড়া টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট কলেজ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি কথাগুলো বলেন।
কলেজ মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন ঐ কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও অধ্যক্ষ আব্দুর রহমান রিজভী।
অন্যান্যের মধ্যে প্রভাষক জাকিরুল ইসলাম, প্রভাষক আবু রেজা প্রমুখ বক্তৃতা করেন।
জাতির পিতার স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে সভাপতির বক্তৃতায় বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে হলে সবাইকে এক সাথে কাজ করতে হবে হবে বলে উল্লেখ করে অধ্যক্ষ রিজভী বলেন, বঙ্গবন্ধু জন্মেছিলো বলে জন্মেছে আমাদের স্বাধীন এই দেশ। তাই এখন সোনার বাংলা গড়তে সবাই নিজ নিজ অবস্থানে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে।
তাঁকে হত্যার পেছনে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র ছিল। এ ষড়যন্ত্রের বিস্তারিত তথ্য আমাদের জাতীয় ইতিহাসে সন্নিবেশিত হওয়া প্রয়োজন।
শেষে ১৫ আগস্ট শাহাদাত বরণকারী প্রত্যেকের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।