• শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৮:৪৭ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
সংবাদ শিরোনাম
ভিসা নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করল ওমান,যাদের যেতে বাধা নেই ঈদ-গ্রীষ্ম মিলে ১৭ দিনের ছুটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নতুন সেনাপ্রধান ওয়াকার-উজ-জামান শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস আজ তিন দিন হবে যেসব স্থানে ভারী বর্ষণ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট সাংবাদিকদের সুরক্ষায় সরকারের সদিচ্ছার প্রমাণ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আজ শপথ নিচ্ছেন নরেন্দ্র মোদি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয়, টাইগারদের অভিনন্দন জানালেন প্রধানমন্ত্রী পবিত্র ঈদুল আজহা ১৭ জুন ৬০ কিমি বেগে ঝড় হতে পারে যেসব অঞ্চলে কোন খাতে কত বরাদ্দ চতুর্থ ধাপে উপজেলা চেয়ারম্যান হলেন যারা এবার এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় সাড়ে ১৪ লাখ শিক্ষার্থী অংশগ্রহন করবে জোটের ওপর ভরসা করতে হচ্ছে মোদিকে সরকারি অফিসের নতুন সময়সূচি ঘোষণা

এমরান মাহমুদ প্রত্যয় এর কবিতা-‘বছরের শেষ মুহূর্ত’

প্রজন্মের আলো / ৮৬ শেয়ার
Update সোমবার, ১৩ মার্চ, ২০২৩

চোখের জল মুছে আর বিদায় জানাবো না
বরং আরো উদ্দীপ্ত আমি
প্রতিবার তুমি চলে যাও
আর বলে যাও সব কিছু পুরাতন হয়ে গেছে
যাবেই যখন যাও, কে থামাবে তোমাকে?
মনের অব্যক্ত কথামালা পুরাতন ক্যালেন্ডারে মত তোমাকে কি থামানো যায়?
সময় বড় অদ্ভুত ঠিকানায় অঠিকানায় ছুটে চলে।
 দিন শেষ রাতের মধ্য প্রহরে আমি আরো তরুণ হবো
কাল সকালে আবার জেগে উঠবো সবার আগে
সুর্যের আলোয় নতুন সম্ভাবনা নিয়ে
বিকষিত সবুজ পাতা
উদ্দীপ্ত হবো শীতল বাতাসের গানে
অনবরত মুগ্ধ হবো  ফুলের গন্ধে
শিশুদের কোলাহল গায়ে মেখে
হেসে উঠবো অবারিত আনন্দে
আরো স্পন্দিত হবো হৃদয়ের গ্রন্থিতে
হবো উচ্ছল,শিশির ভেজা দুর্বা ঘাসে,
প্রজাপতি বর্ণলী ডানা
আলো ঝড়ে পড়বে বৃষ্টির মতো, অবাক হবে তুমি নানা রকম রঙে।
সময়ের খরস্রোতে ডুব দাও তুমি?
ছায়াপথের বেলাভূমিতে বসে শুয়ে
সৌর স্নান করতে করতে
কতোবার পরিভ্রমন করো এই সূর্যলোকে?
তবে একটি জলন্ত সত্য,
আসা যাওয়ার মাঝ পথে
তুমি চলে যাও এ কথাটা কিন্তু একদম ঠিক নয়
বরং সময়ের পরিক্রমায়
ফিরে আসো নতুন নামে, নতুন সংখ্যায়
বছরের শেষ মূহুর্তে আমাকে রাখতে চাও হাজারো উত্তেজনায়।
পুরাতন অতীত বলে আমাকে দমাতে চাও, তবে
আমি কিন্তু দূর্দমনীয়
প্রতি বার শুকনো পাতা ঝড়ে পড়ার শব্দ শুনিয়ে
আমার পাশ কাটিয়ে যতদুর চলে যাও তুমি,
কি বোঝাতে চাও তবে এসব শব্দে?
আমার মনকে ভেঙ্গে ফেলতে চাও, পারবে কি?
আমায় কি ভাঙতে পারো ভেঙেপড়া মর্মরে ?
আমি কিন্তু অনমনীয়
উচ্ছ্বসিত হৃদয়ে  অদম্যমনোবলে অবিরাম ছুটে চলা।
প্রতিবার আমি বলি
অলৌকিক আলো জ্বেলে নতুন রা আসবেই
সমৃদ্ধ করবে শুণ্যতা যতো,
নতুনরা হাসবে নিজ বাসনায় আপন-পিয়াসী মনে পাপমুক্তির ব্যাখ্যা করবে,আলোকিত করবে অন্ধকারের মুখ।
অন্তর্দ্বন্ড বা ভয়ের সংজ্ঞা ব্যাখ্যা করে
তুমি কি আমাকে হতাশ করতে চাও
সময়ের চিরন্তন প্রতিদ্বন্দী,
বিরূপ প্রকৃতির সাথে প্রাগৈতিহাসিক যুদ্ধ,
অন্যদিকে বরফের কফিন নিস্প্রাণ হীমঘর।
একটির পর একটি উপমা দিয়ে আবারো
দেখাতে চাও মৃত্তিকার নীচুতা বা অভিজাততন্ত্রের উচ্চতা না সীমাহীন গন্তব্যে   ঐ দুর সীমানা প্রাচীর ভেঙে।
জীবনের ছায়ায় প্রতিবার হতাশ কিশোরের
কবিতার জাজ্বল্যমান ছাই প্রদর্শন করো
আর হেসে ওঠো, বলো, এসবে কিছু হবেনা হবেনা
কিছু হতে দেবে না?
তারপরও আমি বলি আমাকে ভাঙা এত সহজ নয়।
চোখের জল মুছে
আমি কখনোই তোমায় বিদায় জানাবো না
দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখবোনা তোমার চলে যাওয়া পথ পানে বরং বৃষ্টি আর সম্ভাবনার ডানায় পেখম মেলে নতুন পাতার আগমনে,
আগামী সকালে সূর্যের আলোয় অবলোকন করবো যতটুকু পারি।
কার কত রূপ আর কার কত ছায়া বিকশিত হয়;
মানবিক সত্যের আলোয়, প্রাণবন্ত থাকবো পৃথিবীর শেষ সূর্যাস্ত পর্যন্ত।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ

Categories