• শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৫০ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
সংবাদ শিরোনাম
মান্দায় মদপানে তিন কলেজ ছাত্রের মৃত্যুর ঘটনায় মামলা নওগাঁর মান্দায় বিষাক্ত মদপানে তিন বন্ধুর মৃত্যু সবার সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করুন: প্রধানমন্ত্রী ঈদের ৫ দিনের সরকারি ছুটি শুরু ঈদুল ফিতর বৃহস্পতিবার ঈদুল ফিতরের তারিখ জানাল সৌদি আরব ১৮ জেলায় ঝড়ের আভাস, নদীবন্দরে সতর্কতা বিরল সূর্যগ্রহণ আজ, দিন হবে রাতের মতো ঝড় ও বজ্রপাতে তিন জেলায় নিহত ৭ আজ বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩৩০৯১ ৮ এপ্রিল বিরল সূর্যগ্রহণ, দিন হবে রাতের মতো ‘দেশে ৯৬ লাখেরও বেশি শিশুর রক্তে অতিরিক্ত মাত্রায় সিসা’ ঈদকে ঘিরে নাশকতার হুমকি নেই: ডিএমপি কমিশনার আজ বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস

এশিয়ার সবচেয়ে বড় ফ্রিল্যান্সার্স কনফারেন্স’র আদ্যোপ্রান্ত

প্রজন্মের আলো / ৭৯ শেয়ার
Update শনিবার, ২৬ আগস্ট, ২০২৩

গত ১৯শে আগস্ট, ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয়ে গেল এশিয়ার সবচেয়ে বড় ফ্রিল্যান্সার্স কনফারেন্স। এই কনফারেন্সে সারা দেশ থেকে আগত প্রায় তিন হাজারের বেশি ফ্রিল্যান্সার, আইটি প্রফেশনাল, আইটি উদ্যোক্তারা একত্রিত হয়েছিল। দেশে এর আগে কখনো ফ্রিল্যান্সারদের নিয়ে এত বড় আয়োজন করা হয়নি, তাই এই আয়োজনকে ঘিরে সবার মধ্যে এক অন্যরকম উদ্দীপনা কাজ করছিল। অবশেষে উনিশে আগস্ট সারাদিনব্যাপী বিভিন্ন রকমের আয়োজনের মধ্য দিয়ে সফলভাবে সম্পন্ন হয় – NEXT Ventures Presents National Freelancers Conference 2023 Powered by bKash । এখানে আমি পুরো ইভেন্টের একটা বিস্তারিত চিত্র তুলে ধরার চেষ্টা করব।
সকাল ৯ টায় ইভেন্ট শুরু হয়। তাই তার আগেই ৩০০০+ মানুষকে হলের ভেতরে সুন্দরভাবে প্রবেশ করানো একটি গুরু দায়িত্ব ছিল। আমাদের ভলান্টিয়াররা আগে থেকেই ট্রেইন্ড আপ ছিলেন, তারা জানতেন কিভাবে স্বল্প সময়ে প্রত্যেকের রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করে গিফট হাতে পৌঁছে দেয়া যায়। আমরা এক্ষেত্রে টিকিটের কিউআর কোড কে স্ক্যান করে প্রত্যেক অংশগ্রহণকারীর হাতে তার গিফট হ্যাম্পার দিয়ে দেই যেখানে থাকে বিভিন্ন ধরনের গিফট যেমন টি শার্ট, চাবির রিং, নোটবুক, কলম, স্টীকারসহ আইডি কার্ড এবং রিষ্ট ব্যন্ড। রিষ্ট ব্যান্ড হাতে থাকা অবস্থায়, যেকোন অংশগ্রহণকারী বিনা বাধায় হল থেকে বের হতে এবং হলে ঢুকতে পেরেছেন। বহিরাগত কেউ যেন হলে ঢুকতে না পারে সেজন্য আমরা এই ব্যবস্থা করি।।
ঠিক সকাল ৯ঃ০০ টায় পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত পাঠ করেন হাফেজ কারী রাফিউল ইসলাম। কারী সাহেবের তেলাওয়াতের মূর্ছনায় সবার মন জুড়িয়ে যায়। এরপর আমরা পাঁচ মিনিটের একটি বিরতি দেই। বিরতির পর অংশগ্রহণকারী সকলে একসাথে জাতীয় সংগীত গাই। জাতীয় সংগীত গাওয়ার সময় সামনে ধরে রাখা পতাকা এটাই জানান দেয় যে আজ বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সাররা এক ইতিহাস গড়তে যাচ্ছে।
জাতীয় সংগীতের পর পরই Faisal Mustafa স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন। উক্ত বক্তব্যে ফ্রিল্যান্সাররা কিভাবে দেশের রেমিটেন্স উপার্জনে দক্ষ ভূমিকা রাখছে তা তুলে ধরেন। এবং একই সাথে কিভাবে আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুযোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশের আইটি সেক্টর সামনে এগিয়ে যাচ্ছে তা উল্লেখ করেন।
প্রথমেই বক্তব্য রাখেন Women and e-Commerce Trust ( WE ) এর প্রেসিডেন্ট Nasima Akter Nisha আপু। উনি যেহেতু নারী উদ্যোক্তাদের নিয়ে কাজ করেন, সেহেতু উনি উনার অভিজ্ঞতার আলোকে কিভাবে একজন নারী সফল উদ্যোক্তা হতে পারে সে বিষয়ে দিকনির্দেশনা দেন। উনার টপিক ছিল “How to Make Yourself an Entrepreneur.” সত্যি কথা বলতে এই দিকনির্দেশনা শুধুমাত্র নারীদের ক্ষেত্রে নয় সবার ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য।
পরবর্তীতে স্টেজে উঠেন বাংলাদেশ পুলিশের এডিশনাল ডেপুটি পুলিশ কমিশনার জনাব সাইদ নাসিরুল্লাহ অভি । যেহেতু ওনার সাইবার সিকিউরিটি নিয়ে দীর্ঘদিন কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে, তাই তিনি টপিক হিসেবে কথা বলেন “Cyber Security for Online Professionals – Best Practices and Risk Factors.” এখানে তিনি খুব সুন্দর ভাবে একজন অনলাইন প্রফেশনাল তার প্রফেশনাল লাইফে কিভাবে সেইফ এবং সিকিউর্ড থাকা যায় তার কিছু আইডিয়া এবং টিপস দিয়েছেন। তার এই দিকনির্দেশনা পালন করলে যে কোন অনলাইন প্রফেশনাল অনলাইনে নিজেকে সেইফ রেখে কাজ করতে পারবে।
পরবর্তীতে স্টেজে উঠেন কোডম্যান বিডি এবং ওয়েব ব্যাটেলিয়ন এর প্রতিষ্ঠাতা জনাব Minhazul Asif। তার টপিক ছিল “Fearless Freelancers: Empowering Your Mindset for Success”। ফ্রিল্যান্সারদের অনেকেই সাহস করে বিভিন্ন উদ্যোগ নিতে ভয় করেন, তাদের এই ভয়কে জয়ে রূপান্তরিত করার জন্য মাইন্ড সেট এর পরিবর্তন কিভাবে করতে হবে এ বিষয়টার উপর খুব সুন্দর বক্তব্য দেন মিনহাজুল আসিফ। ছোট কিছু নিয়ম-কানুন মেনে চললে খুব সহজেই সফলতাকে অন্য ধাপে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয় – আসিফ ভাইয়ের এই টিপসগুলো ফ্রিল্যান্সারদের গ্রোথে সাহায্য করবে অবশ্যই।
আমাদের পরবর্তী আয়োজন ছিল আমাদের সবার প্রিয় পেমেন্ট গেটওয়ে Payoneer এর সিনিয়র বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার জনাব Nafiur Rahman ভাইয়ের। তিনি তার বক্তব্যে বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সিং এর একটি সামগ্রিক চিত্র তুলে ধরেন এবং সুনির্দিষ্ট তথ্যের উপর ভিত্তি করে কিভাবে ফ্রিল্যান্সাররা তাদের প্রফেশনাল লাইফে আরও বেশি উপার্জন করতে পারে সেই বিষয়ে দিক নির্দেশনা দেন। যেহেতু পেওনিয়ার সরাসরি ফ্রিল্যান্সারদের সাথে কাজ করে, তাই পেওনিয়ার এর একজন সিনিয়র কর্মকর্তার কাছ থেকে এই ধরনের দিকনির্দেশনা পাওয়া নতুন ও পুরাতন ফ্রিল্যান্সারদের জন্য কার্যকর ভূমিকা পালন করেছে।
এরপর আমরা একটি প্যানেল ডিসকাশন এর আয়োজন করি যার টপিক ছিল Business & Marketing Tactics. এই সেশনটি মডারেট করেন ইন্সট্রাক্টরি এর চিফ অপারেটিং অফিসার Hosna Ara Kolly। এখানে পেনালিস্ট হিসেবে অংশগ্রহণ করেন ইউআই বার্ন এর ট্যাক লিড S M Shahadat Hossain, Graphic Solo এর ফাউন্ডার ও সিইও Ariful Islam, ডিজিটাল মার্কেটার A. H. Ali, লকড বিজনেস এর সিইও Prince Chowdhury, ডায়না হোস্ট এর সিইও Swadhin Khan Mohammad Nakib এবং HB Aviation Training Center এর সিইও Zaki S. Bari। ফ্রিল্যান্সিং থেকে কেউ বিজনেস করতে চাইলে কি কি বাধার সম্মুখীন হতে পারে এবং এই বাধা গুলো কিভাবে অতিক্রম করা যায় সেই বিষয়ে কথা বলেন আরিফুল ইসলাম। ডিজাইনাররা তাদের ডিজাইনকে আরো ভালোভাবে কিভাবে সেল করতে পারে সে বিষয়ের উপর কথা বলেন শাহাদাত হোসেন। প্রিন্স চৌধুরী কথা বলেন ফ্রিল্যান্সারদের বিটুবি বা বিটুসি মার্কেটিং এর কিছু ট্রিক্স নিয়ে। A.H. Ali কথা বলেন ফ্রিল্যান্সারদের সার্ভিস সেলের ক্ষেত্রে মার্কেটিং স্কিল নিয়ে। Swadhin Khan কথা বলেন ফ্রিল্যান্সারদের কেন বিজনেসের দিকে আসা উচিত অর্থাৎ কেন একজন ফ্রিল্যান্সার কে একটা নির্দিষ্ট সময় পরে অবশ্যই উদ্যোক্তা হওয়ার ব্যাপারে চিন্তা করা উচিত এবং সেই অনুযায়ী কাজ করা উচিত।
পরবর্তীতে স্টেজে উঠে #NFCON2023 এর powered by sponsor – bKash Limited. তারা তাদের বক্তব্যে বিকাশ কিভাবে ফ্রিল্যান্সারদের রেমিটেন্স আনায় সহায়তা করছে সে বিষয়ে উপর আলোকপাত করেন এবং ভবিষ্যতে বিকাশ কিভাবে ফ্রিল্যান্সারদের সাথে থেকে ফ্রিল্যান্সারদের অগ্রগতিতে ভূমিকা রাখবে সেই বিষয়টি তুলে ধরেন। আমাদের দেশের অনেক ফ্রিল্যান্সার যারা ছোট ছোট এমাউন্টের রেমিটেন্স দেশে আনেন তাদের জন্য বিকাশের বিকল্প আর কিছু নেই। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ইনস্ট্যান্ট রেমিটেন্স আনার জন্য বিকাশ অগ্রগামী ভূমিকা পালন করছে।
এরপর বক্তব্য রাখেন NFCON2023 এর টাইটেল স্পন্সর Next Ventures এর সিইও জনাব Abdullah Jayed . আমরা জানি Next Ventures বাংলাদেশের অত্যন্ত সফল একটি আইটি প্রতিষ্ঠান যারা তাদের কাজের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশের নাম তুলে ধরছে এবং ইউনিকর্ন কোম্পানি হওয়ার টার্গেট নিয়ে সামনে এগিয়ে চলেছে। Abdullah Jayed তার বক্তব্যের মাধ্যমে Next Ventures এর অভিজ্ঞতার আলোকে কিভাবে একজন সফল উদ্যোক্তা হতে হয় সে বিষয়ের উপর দিকনির্দেশনা দিয়েছেন।
আমাদের প্রধান অতিথি মাননীয় ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার স্যারকে ফুল দিয়ে বরন করে নেন Freelancers of Bangladesh (FOB) এর সদস্যরা। এসময় স্টেজে উপস্তিত ছিলেন BFDS এর সম্মানিত চেয়ারম্যান ডাঃ তানজিবা রহমান। শোকাহত আগস্ট মাস কে স্মরণ করে আমরা এক মিনিট নীরবতা পালন করি। এরপর মন্ত্রী মহোদয় দেশসেরা ফ্রিল্যান্সারদের এওয়ার্ড, মেডেল ও সার্টিফিকেট প্রদান করেন। এওয়ার্ড প্রদানের পুরো বিষয়টি অত্যন্ত স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ ছিল, কারো এই বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত জানতে চাইলে এই পোস্টটি দেখতে পারেন: https://www.facebook.com/groups/thefreelancersofbd/permalink/2167700853422830/
আমাদের সমাজে এমন অনেক ফ্রিল্যান্সার আছেন যারা শারীরিকভাবে চ্যালেঞ্জ, কিন্তু তা সত্ত্বেও অত্যন্ত দক্ষতার সাথে সফলভাবে ফ্রিল্যান্সিং করে দেশের জন্য রেমিটেন্স নিয়ে আসছেন। এমন দুইজন ফ্রিল্যান্সারকে আমরা সম্মানিত করি আমাদের এই ইভেন্টে। আমরা সবাই জানি Fahim Ul Karim ছিল একজন যোদ্ধা, জেনে নিজের হাজারো শারীরিক অক্ষমতা থাকা সত্ত্বেও সফল ফ্রিল্যান্সার হয়ে দেখিয়েছেন। যদিও তিনি আমাদের মাঝে নেই, তারপরও তাকে সম্মানসূচক আমরা অ্যাওয়ার্ড প্রদান করি। ফাহিমুলের পক্ষে অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করেন ফাইবারের কমিউনিটি লিডার জনাব Md Zahidul Islam। মন্ত্রী মহোদয়ের হাত থেকে ক্রেস্ট গ্রহণ করেন টাইটেল স্পনসর নেক্সট ভেঞ্চারস এবং পাওয়ার্ড বাই স্পন্সর বিকাশ।
এরপর ফ্রিল্যান্সারদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য প্রদান করেন বাংলাদেশ সরকারের ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী জনাব মোস্তফা জব্বার। তিনি তার বক্তব্যে কিভাবে তরুণ প্রজন্ম নিজেদের সক্ষমতা কে কাজে লাগিয়ে তাদের প্রফেশনাল জীবনে আরও বেশি ভালো করতে পারে সেই বিষয়ের উপর আলোকপাত করেছেন। উনার মত অভিজ্ঞ মানুষের অভিজ্ঞতার আলোকে প্রদত্ত প্রতিটি কথা ফ্রিল্যান্সারদের ভবিষ্যৎ জীবন গঠনে কার্যকরী ভূমিকা রাখবে বলে আমি মনে করি।
এরপর স্টেজে ওঠেন গুগলের বাংলাদেশ এবং শ্রীলংকার ইন্ডাস্ট্রি লিড জনাব গোলাম কিবরিয়া। যদিও ফ্রিল্যান্সারদের উদ্দেশ্যে গুগলের ফ্রন্ট ইয়ার মার্কেট লিড তারায়ুনের এই ইভেন্টে জয়েন করার কথা ছিল, কিন্তু শেষ মুহূর্তের এক্সিডেন্ট এর কারনে তারায়ুন ইভেন্টে জয়েন করতে পারেননি। তাই তিনি স্টেজে একটি ভিডিও বার্তার মাধ্যমে পরিচয় করিয়ে দেন গুগলের বাংলাদেশ এবং শ্রীলংকার ইন্ডাস্ট্রির জনাব গোলাম কিবরিয়া স্যারকে। তিনি তার বক্তব্যের মাধ্যমে খুব সুন্দরভাবে তুলে ধরেন কিভাবে গুগলকে ব্যবহার করে একটি সেলস স্ট্র্যাটেজি তৈরি করতে পারে ফ্রিল্যান্সাররা।
এরপর লাঞ্চ ব্রেক শুরু হয়। আমাদের দক্ষ ভলেন্টিয়ার গন খুব সুন্দরভাবে সকল ফ্রিল্যান্সারদের মধ্যে লাঞ্চ ডিস্ট্রিবিউশন সম্পন্ন করেন। লাঞ্চের ক্ষেত্রে যদিও কোন ধরা বাধা নিয়ম ছিল না যে হলের বাইরে বসে খেতে হবে, অনেক ফ্রিল্যান্সাররাই নিজ নিজ উদ্যোগে হলের বাইরে বসে খাওয়া-দাওয়া করেন এবং একসাথে গল্প গুজব ও আড্ডায় মেতে উঠেন। আসলে এটা ছিল আনন্দ উল্লাসের একটি বহিঃপ্রকাশ । কিন্তু পরবর্তীতে আমরা দেখতে পাই একটি গ্রুপ স্বপ্রণোদিত হয়ে বাইরে বসে খাওয়ার ছবিগুলোকে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করার চেষ্টা করে যা সত্যিই দুঃখজনক। আইসিসিবিতে অনুষ্ঠিত যেকোনো প্রোগ্রামের খাবার আইসিসিবি কর্তৃপক্ষের কাছ থেকেই নিতে হয়, এক্ষেত্রে আমাদেরও বাইরে থেকে খাবার নেওয়ার কোন সুযোগ ছিল না। আইসিসিবি যেহেতু নিয়মিত অনুষ্ঠান আয়োজন করে, আমাদের ধারণা ছিল তারা তাদের খাবারের ব্যাপারে যথেষ্ট যত্নশীল। কিন্তু ইভেন্টের দিন আমাদের তা ভুল প্রমাণিত হয়, আইসিসিবির খাবারের কোয়ালিটি নিয়ে অনেকেই মন্তব্য করেছেন যা আমরা গঠনমূলক সমালোচনা হিসেবে গ্রহণ করে নিচ্ছি। এই বিষয়টি ইতোমধ্যেই আমরা ICCB Catering কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি এবং তারাও তাদের পক্ষ থেকে দুঃখ প্রকাশ করেছে। আশা করছি আমাদের এই অনিচ্ছাকৃত ভুলকে অংশগ্রহণকারীগণ ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।লাঞ্চ ব্রেকের শেষের দিকে ইউ আই বার্নের সৌজন্যে রেফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়। পাঁচজন ভাগ্যবান কে রেফেল ড্র এর মাধ্যমে পুরস্কৃত করা হয়।
লাঞ্চের পর পরই স্টেজে উঠেন Emrazina Technologies এর Owner ও Founder এবং কাজ ৩৬০ – কাজ সবার সবখানে এর Founder Emrazina Islam । ফ্রিল্যান্সার লাইভ হ্যাক নিয়ে আপুর দেওয়া বক্তব্যটি সকলেই খুব প্রশংসা করেন। Emrazina Islam আপু সব সময় তার সহজ সরল ভাষায় ফ্রিল্যান্সারদের অনেক গুরুগম্ভীর টিপস এন্ড ট্রিক্স দেন যা ফ্রিল্যান্সারদের ব্যক্তি জীবনে এবং প্রফেশনাল জীবনে খুবই কাজে লাগে।
এরপর স্টেজে ওঠেন Wind.app এর Founder/CEO এবং Pathao এর Co-Founder জনাব Hussain M Elius ভাই। উনি ওনার বক্তব্যে একজন ফ্রিল্যান্সার কিভাবে জিরো থেকে একটা বিজনেস গড়ে তুলতে পারে এবং সেটাকে স্কেল আপ করতে পারে তার উপর আলোকপাত করেন। যেহেতু ইলিয়াস ভাইয়ের অভিজ্ঞতা রয়েছে কিভাবে বিজনেস স্কেল আপ করতে হয় তাই সরাসরি তার থেকে পাওয়া এই টিপসগুলো ফ্রিল্যান্সারদের প্রফেশনাল লাইফে খুবই কার্যকর ভূমিকা পালন করবে বলে আমি মনে করি।
এরপর স্টেজে ওঠেন আমাদের সবার প্রিয় প্রথম আলোর হেড অফ ইয়ুথ প্রোগ্রাম Munir Hasan স্যার। অনেক অনেক কাজ কিভাবে অল্পতেই সেরে ফেলা যায় এই বিষয়ের উপর খুব সুন্দর সাবলীল বক্তব্য প্রদান করেন স্যার।
এরপরে একটি প্যানেল ডিসকাশনের আয়োজন করা হয় যেখানে মূলত বিভিন্ন অ্যাসোসিয়েশন গুলো ফ্রিল্যান্সারদের প্রফেশনাল গ্রোথে কিভাবে সাহায্য করতে পারে সেই বিষয়ের উপর আলোচনা করা হয়। এই সেশনটি মডারেট করেন ভাইজার এক্স এর সিইও জনাব ফয়সাল মুস্তাফা। এখানে প্যানেলিস্ট হিসেবে অংশগ্রহণ করেন DR. Tanjiba Rahman – Chairman, BFDS এবং Director, BACCO । AKM Ahmedul Islan BABU – Director, BASIS এবং BACCO । Towhid Hossain – Secretary General, BACCO । Mohammad Ilmul Haque Sajib – Co-founder, sheba.xyz এবং Director, ECAB। Md Ziaul Haque Bhuiyan – National President, JCI Bangladesh । Emdadul Hoque – President, Internet Service Provider Association of Bangladesh ( ISPAB)। ডা: তানজিবা রহমান কথা বলেন BFDS কিভাবে ফ্রিল্যান্সারদের অগ্রগতিতে ভূমিকা রাখতে পারে সেটা নিয়ে এবং ফ্রিল্যান্সারদের 4% ক্যাশ ইন্সেন্টিভ কবে নাগাদ প্রদান শুরু হতে পারে এই বিষয়ে। AKM Ahmedul Islam BABU কথা বলেন কিভাবে BASIS ফ্রিল্যান্সার ও আইটি প্রফেশনাল দের উন্নতিতে কাজ করে যাচ্ছে সে বিষয় নিয়ে। Towhid Hossain আমাদেরকে জানান BACCO কিভাবে ফ্রিল্যান্সার হতে উদ্যোক্তা হওয়ার ক্ষেত্রে কার্যকরী ভূমিকা পালন করছে এবং ফ্রী ট্রেনিং প্রদান করছে, একই সাথে ফ্রিল্যান্সাররা চরম প্রতিকূলতার মধ্যেও কিভাবে শান্তভাবে টিকে থেকে কাজ করে যেতে পারে সেই বিষয়ের উপর কথা বলেন। ফ্রিল্যান্সার দের মধ্যে অনেকেই এখন Amazon FBA, Dropshipping, Print on demand এই বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করে, তাই Mohammad Ilmul Haque Sajib কথা বলেন E-Cab কিভাবে এই ক্ষেত্রে ফ্রিল্যান্সারদের সহায়তা করতে পারে। Md Ziaul Haque কথা বলেন কিভাবে একজন ফ্রিল্যান্সার জেসিআই এর মত অর্গানিজেশনে কানেক্টেড হয়ে নেটওয়ার্কের মাধ্যমে গ্রোথ এনসিওর করতে পারে। ইমদাদুল হক কথা বলেন কিভাবে সারা দেশব্যাপী ইন্টারনেটের কানেক্টিভিটি ছড়িয়েছে এবং ভবিষ্যতে স্টারলিংক স্যাটেলাইট এর মাধ্যমে ইন্টারনেট সেবা প্রদান করলে তা ফ্রিল্যান্সারদের অগ্রগতিতে কিভাবে আরো ব্যাপক ভূমিকা পালন করতে পারে।
এর পরের প্যানেল ডিসকাশন টির টপিক ছিল Business Development: Navigating Opportunities and Driving Growth। এখানে মডারেটর হিসেবে ছিলেন ভাইজার এক্স এর সিইও জনাব ফয়সাল মুস্তাফা। প্যানেল স্পিকার হিসেবে এখানে ছিলেন Saidur Mamun Khan – Upwork এর Manager, Lead Generation এবং JCI Dhaka Founders এর Secretary General ।
Asif Khan – EDGE AMC Limited এর Chairman । S M Belal Uddin Texort এর সিইও এবং GearLaunch এর Country Manager । Md Zahidul Islam – Fiverr এর কমিউনিলিটি লিডারশিপ টিম এর টিম লিডার। Sayma Shawkat– ASK Telecom Ltd.এর Managing Director । Tanzim Hasan Fahim – NEXT Ventures এর Head of Technology। Saidur Mamun Khan তার অভিজ্ঞতার আলোকে ফ্রিল্যান্সাররা কিভাবে ভার্চুয়ালি টিম বিল্ড করতে পারে তারউপর আলোচনা করেন। আসিফ খান আলোচনা করেন ফ্রিল্যান্সাররা কিভাবে এসিড বিল্ড আপ করতে পারেন এবং সেভিংস কিভাবে করতে পারেন তার উপর। এস এম বেলাল উদ্দিন কথা বলেন নতুনরা যদি প্রিন্ট অন ডিমান্ড মার্কেটে আসতে চায় তাহলে কিভাবে প্রস্তুতি নেয়া উচিত। জাহিদুল ইসলাম কথা বলেন ফাইভারের বাংলাদেশের প্রতি দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তনের তিনি কিভাবে ভূমিকা রাখবেন সেটা নিয়ে। সায়মা শওকত কথা বলেন নারীরা কিভাবে উদ্যোক্তা হতে পারে এবং সে ক্ষেত্রে পরিবার তাকে কিভাবে সাপোর্ট দিতে পারে এই বিষয়ের উপর। তানজিম হাসান ফাহিম কথা বলেন কিভাবে Next Ventures এর মত মেগা প্রজেক্টে কাজ করার জন্য নিজেকে কিভাবে প্রস্তুত করতে হবে।
এরপর স্টেজে আসেন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (BASIS) এর প্রেসিডেন্ট জনাব Russell T Ahmed। তিনি কথা বলেন Smart Online Professionals for Smart Bangladesh এই টপিক নিয়ে। রাসেল টি আহমেদের অভিজ্ঞতার আলোকে শেয়ার করা টিপস এবং ট্রিক্স গুলো আমাদের তরুণ প্রজন্ম, ফ্রিল্যান্সার, আইটি প্রফেশনাল সবার জন্য খুবই কার্যকর ভূমিকা পালন করবে বলে আশা করি ।
ইভেন্টের এই পর্যায়ে FOB এর এডমিন মডারেটরদের অংশগ্রহণে একটি ফ্যাশন শো আয়োজন করা হয়। এই ফ্যাশন শো এর পুরো আইডিয়া এবং তত্ত্বাবধান করেন রিফাত এম হক। স্বল্প সময়ের এই ফ্যাশন শো এ ফ্রিল্যান্সারদের লাইফ স্টাইল এবং তাদের ডিমান্ড তুলে ধরা হয়। ইভেন্টে অংশগ্রহণকারী ফ্রিল্যান্সাররা এই ফ্যাশন শো টিকে খুবই আনন্দের সাথে উপভোগ করে । এর মাধ্যমে ফুটে উঠে ফ্রিল্যান্সারদের ফ্রিল্যান্সিং জীবনে ছোট ছোট চাওয়া পাওয়া গুলা। আর সর্বশেষ “পেপাল চাই” এই দাবির মাধ্যমে সকল ফ্রিল্যান্সারের মনের দাবি জানিয়ে দেওয়া হয় ইভেন্টে আগত সবাইকে।
এরপর স্টেজে ওঠেন ভাইজার এক্স এর সিইও ফয়সাল মোস্তফা। তিনি কথা বলেন “Tools to Boost up your Professional Performance” এই বিষয়ের উপর। তিনি তার বক্তব্যে ছোট ছোট কয়েকটি টুলস এর ব্যবহার দেখান যা একজন ফ্রিল্যান্সার বা উদ্যোক্তার কাজকে অনেক গুছিয়ে দিবে এবং পারফরম্যান্স ট্র্যাক করে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে সহায়তা করবে। ফ্রিল্যান্সাররা সাধারণত ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেস এর বাহিরে কাজ করতে গেলে ক্লায়েন্ট কিভাবে পেতে হবে সেটা নিয়ে সমস্যায় ভুগেন। ফয়সাল মুস্তফা তার বক্তব্যে সহজেই ক্লায়েন্ট পাওয়ার জন্য একটি টুল দেখান যা গুগল এপিআই এর সাথে কানেক্ট হয়ে শত শত লিড এনে দিতে পারে মুহূর্তেই।
এরপর ডেভেলপারদের জন্য একটি প্যানেল ডিসকাশন অনুষ্ঠিত হয়, যার নাম হলো “Decoding the Freelance Developer’s Odyssey”. এই প্যানেল ডিসকাশন টি মডারেট করেন A S M Iftekharul Islam। প্যানেলিস্ট হিসেবে ছিলেন Mojahidul Islam – Founder and CEO, Techoners এবং President, BITPA । Atiqur Rahman – Founder ও CEO, SupreoX Limited। Masum Billah Bhuiyan – Founder ও CEO, Giant Marketers। Ali Hossain – Founder ও Educator, Procoder। Rasel Khondokar – Founder, Director ও CEO, Team8x ।
ফ্রিল্যান্সারদের একটি বিশাল অংশ গ্রাফিক ডিজাইন নিয়ে কাজ করে। তাদের কথা চিন্তা করে আমাদের পরবর্তী প্যানেল ডিসকাশন ছিল ডিজাইনারদের জন্য। “Exploring the Landscape of Designing in Freelancing” এই হেডলাইন নিয়ে প্যানেল ডিসকাশন টি মডারেট করেন Golam Kamruzzaman Bhai। এই প্যানেল ডিসকাসনে প্যানেলিস্ট হিসেবে উপস্থিত ছিলেন Kamruzzaman Sishir : Founder & Owner at Dewapples Creative Zone | Zumanur Rahman : Founder, CEO at DesignJanala | Md Riduwan Molla : Founder at Brandreka | Junaid Aman Junu : Community Leader, Chattogram Freelancer Community | Hass Hasib : Creative Graphic Designer & Content Creator | Ruhul Amin Rubel : Founder and CEO at Designsraw
ইভেন্টের এই পর্যায়ে জিএফএক্স মেন্টর Imran Ali Dina অনলাইনে ভিডিও কলের মাধ্যমে পুরো অডিয়েন্সের সাথে কানেক্টেড হোন। স্বল্প সময়ের জন্য কানেক্টেড হলেও পুরো অডিয়েন্সকে কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস দিয়ে যান ইমরান আলী দিনা। ডিজাইনারদের জন্য তিনি কিছু আইডিয়া শেয়ার করেন যা তাদের আরো ভালো চিন্তা করতে সহায়তা করবে। অডিয়েন্সদের থেকে কিছু প্রশ্ন নেয়া হয় যার খুব সুন্দর উত্তর দেন দিনা। সবমিলিয়ে ইমরান আলী দিনার এই সেশনটি খুবই উপভোগ করেন ফ্রিল্যান্সাররা।
ইভেন্টের একেবারে শেষের বক্তব্যটি দেন জনপ্রিয় কন্টেন্ট ক্রিয়েটর Rafayat Rakib যিনি একইসাথে একজন সফল ফ্রিল্যান্সার। তার বক্তব্যের বিষয় ছিল “Freelancing as a Fulltime job vs. A Traditional corporate job”। তিনি তার বক্তব্যে খুব সুন্দর সাবলীল ভাষায় কৌতুকের সাথে ফ্রিল্যান্সারদের কিছু ফ্যাক্ট তুলে ধরেন এবং গাইডলাইন দেন কিভাবে এই সমস্যাগুলো সমাধান করে সফলতার পথে এগিয়ে যাওয়া সম্ভব।
ইভেন্টের এই পর্যায়ে দ্বিতীয় ধাপের রেফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়। ইউআই বার্নের সৌজন্যে পাঁচজন ভাগ্যবান ফ্রিল্যান্সার রেফেল ড্রয়ের পুরস্কার পান।
এরপর ইভেন্টের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হয়। এখানে পার্টি সিপেট করেন জনপ্রিয় ব্যান্ড দল Black (Bangladeshi Band)। তাদের গানের মূর্ছনায় পুরো অডিয়েন্সকে কিছুটা সময় ভুলিয়ে দেন ব্ল্যাক।
এই পুরো ইভেন্টে পৃষ্ঠপোষক হিসেবে যারা আমাদের সাথে ছিলেন তাদের সবাইকে জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ। তাদের পৃষ্ঠপোষকতা ছাড়া এত বড় আয়োজন সফলভাবে সম্পন্ন করা কোনভাবেই সম্ভবপর ছিল না। তারপরও ইভেন্ট আয়োজনের শেষ দিকে আমরা দেখতে পাই টি-শার্ট এর জন্য আমাদের বাজেট সংকট রয়েছে, তখন FOB এর এডমিনদের মধ্য থেকে মিনহাজুল আসিফ এর Codemanbd, ফয়সাল মোস্তফা এর VISER X এবং রিফাত এম হকের DYT টিশার্ট স্পনসর করতে এগিয়ে আসে। তাই টি শার্টের পিছনে ছোট করে হলেও এ লোগো গুলো আমাদেরকে স্থান দিতে হয়। টি-শার্টের সম্পূর্ণ ডিজাইনটি আরো সুন্দর হতে পারত, যা একান্তই আমাদের ব্যর্থতা। কিন্তু টি-শার্টের কাপড়ের কোয়ালিটি ছিল খুবই উন্নতমানের, যা বিবেচনা করে ডিজাইন সংক্রান্ত এই অনিচ্ছাকৃত ভুলকে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখার আহ্বান জানাচ্ছি।
আমাদের সাথে ইভেন্টে এসোসিয়েট পার্টনার হিসেবে ছিল প্রথম আলো, বেসিস, বাক্কো, বিএফডিএস, জেসিআই, বিডি এসএন – তারা সবাই বিভিন্ন সময় আইডিয়া এবং পরামর্শ দিয়ে সহায়তা করেছেন, আমাদের পাশে থেকে এত বড় আয়োজন কিভাবে সুন্দরভাবে সম্পন্ন করা যায় সেই বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছেন। ধন্যবাদ আমাদের সকল এসোসিয়েট পার্টনারদের কে।
এই ইভেন্ট আয়োজনের শুরু থেকে সকাল ভলান্টিয়ারগণ অক্লান্ত পরিশ্রম করে গেছেন। ভলান্টিয়ারদের এই পরিশ্রম ছাড়া এই আয়োজন সফল করা সম্ভব হতো না। তাই ভলান্টিয়ারদের জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ। একই সাথে ধন্যবাদ জানাই FOB এর পুরো টিমকে।
এবার আসি হিসাবে। FOB এর আয়োজকদের সকলেই স্ব-স্ব ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত। এই ইভেন্ট তাদের একটা প্যাশনের জায়গা। আপনারা অনেকেই জানেন ২০১৯ সালে প্রথম যখন ফাইবার বাংলাদেশের পক্ষ থেকে মিট আপ আয়োজন করা হয় তখন প্রায় ৭০০ ফ্রিল্যান্সারের উপস্থিতিতে হাতিরঝিলের তৎকালীন BGMEA ভবনে মিট আপ আয়োজন করা হয় যেখানে অংশগ্রহণকারীদের পক্ষ থেকে কোনো প্রকার পেমেন্ট নেয়া হয়নি। ২০২১ সালেও প্রায় এক হাজার ফ্রিল্যান্সারদের কে নিয়ে IDEB তে দিনব্যাপী অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। তারই ধারাবাহিকতায় NCON2023 আয়োজন করা হয়। এই ইভেন্টের সকল আয় ব্যয়ের হিসাব খুব শীঘ্রই প্রকাশ করা হবে, ধৈর্য্য ধরুন।
সর্বোপরি, যাদের জন্য এই আয়োজন, সেই ফ্রিল্যান্সার ভাই বোনেরা অত্যন্ত ধৈর্যের সাথে পুরোটা সময় জুড়ে ইভেন্ট উপভোগ করেছেন। আমাদের প্রচেষ্টা ছিল সেশনগুলোকে এমন ভাবে সাজানোর যাতে অংশগ্রহণকারী সবাই উপকৃত হয়। একটা কনফারেন্স মানে নেটওয়ার্কিং, গেদারিং, আড্ডা, লার্নিং, শেয়ারিং সহ অনেক কিছু। NFCON2023 এ অংশগ্রহণকারী ফ্রিল্যান্সারগণ খুব সুন্দর সময় কাটিয়েছেন এবং বেশিরভাগ ফ্রিল্যান্সার ইভেন্টটিকে সফল হিসেবে মনে করছেন। ছোটখাটো কিছু ভুল ত্রুটি ছিল আমাদের যেগুলোকে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখার আহ্বান জানাচ্ছি। সব মিলিয়ে, আমরা দৃঢ় কন্ঠে বলতে পারি এশিয়ার সর্ববৃহৎ ফ্রিল্যান্সার কনফারেন্স #NFCON2023 অত্যন্ত সফলতার সাথে সম্পন্ন হয়েছে।

Rifat M Huq এর ফেসবুক ওয়াল থেকে


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ

Categories